Home
Published: 2017-04-03 02:18:19

নিউজ আগামী:

চীন সহায়তা করুক আর না-ই করুক, যুক্তরাষ্ট্র এককভাবে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক হুমকির ‘সমাধান’ করবে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এমন মন্তব্য করেছেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্প মনে করেন, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু হুমকি মোকাবেলায় একাই পদক্ষেপ নিতে পারে তার দেশ। যুক্তরাজ্যের সংবাদ মাধ্যম ফিন্যান্সিয়াল টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে ট্রাম্প বলেন, ‘চীন যদি উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সমস্যা মোকাবেলায় ব্যবস্থা না নেয় বা যদি পিয়ংইয়ং এর ওপর যথেষ্ট চাপ সৃষ্টি না করে তাহলে যুক্তরাষ্ট্র একাই ব্যবস্থা নিতে পারে।’

চীনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ট্রাম্পের প্রথম সাক্ষাতে উত্তর কোরিয়ার সাম্প্রতিক মিসাইল পরীক্ষার বিষয়টি সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পাবে বলে মনে করা হচ্ছে। ট্রাম্প জানান, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু প্রকল্পের বিরুদ্ধে চীন কড়া অবস্থান না নিলে যুক্তরাষ্ট্র এককভাবে ব্যবস্থা নিতে প্রস্তুত আছে।

এই সপ্তাহেই চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে সাক্ষাত করবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বৃহস্পতি ও শুক্রবারের বৈঠকে দুই নেতা উত্তর কোরিয়া, দক্ষিণ চীন সাগরে বিরোধ, বাণিজ্যসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু নিয়ে আলোচনা করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

“উত্তর কোরিয়ার ওপর চীনের ব্যাপক প্রভাব রয়েছে। আর চীনকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু হুমকি মোকাবেলায় আমাদের তারা সাহায্য করবে কিনা। যদি চীন সাহায্য করে তাহলে তাদের জন্যই সেটি অনেক মঙ্গলদায়ক, আর যদি না করে তাহলে সেটি কারো জন্যই ভালো কিছু বয়ে আনবে না”- জিনপিংয়ের সঙ্গে সাক্ষতকারের মাত্র দিন কয়েক আগে এভাবেই মনোভাব ব্যক্ত করলেন ট্রাম্প।

তবে উত্তর কোরিয়াকে মোকাবেলায় কী ধরনের পদক্ষেপ নেবে যুক্তরাষ্ট্র, সে বিষয়ে কোনও ইঙ্গিত দেননি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কয়েক দফা হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

 

গত মাসেই শক্তিশালী রকেট প্রযুক্তি তৈরির দাবি জানিয়েছে উত্তর কোরিয়া। ওই রকেট পরীক্ষার ঘোষণার সময় নতুন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন পূর্ব এশিয়া সফর করছিলেন। উত্তর কোরিয়া বলছে এই প্রযুক্তি তাদের মহাকাশ কর্মসূচিতে ব্যবহার করা হবে, তবে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলোর আশঙ্কা যে এই প্রযুক্তিকে ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার জন্য ব্যবহার করা হতে পারে।

নিউজ আগামী/রেজা

 

ব্রেকিং নিউজঃ
Widget by:Baiozid khan