Home
Published: 2015-06-23 03:05:35

নিউজ আগামী : ঈদের দিন পাঞ্জাবি না পরলে নিজেকে ঠিক পরিপূর্ণ লাগে না।’ তরুণ ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদের এই উক্তিই যেন সব ছেলে-বুড়োর মনের কথা। ঈদের সকালে গোসলের পর পাঞ্জাবি ছাড়া আর কী! নতুন পাঞ্জাবি গায়ে চড়িয়ে হাতে আতরের গন্ধ ছড়িয়ে কোলাকুলি করাতেই ঈদের আনন্দ।
আরামদায়ক পাঞ্জাবি পছন্দ দুজনেরইএবার ঈদে কেমন হবে ছেলেদের পাঞ্জাবি। রং বা কাটে কোনো ধারা? প্রশ্নগুলোর উত্তর খুঁজে পাওয়া গেল বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসের ঈদ সংগ্রহ দেখে আর ডিজাইনারদের সঙ্গে কথা বলে। ফ্যাশন হাউস ক্যাটস আইয়ের পরিচালক সাদিক কুদ্দুস বলেন, ‘এবার যেহেতু গরমে ঈদ, তাই হালকা রংগুলো প্রাধান্য পাবে। আর পাঞ্জাবির কাপড়ে আরাম দিতে সুতির কোনো বিকল্প নেই। দিনের বেলায় পরার জন্য খুব বেশি জমকালো না বরং অল্প নকশাই ভালো দেখাবে।’ 

সাদামাটা নকশা বেশি ভালোবাসি 
—নাসির হোসেন 
সাধারণত প্রতি শুক্রবারই পাঞ্জাবি পরেন জাতীয় দলের অন্যতম এই ক্রিকেটার। আর ঈদের দিন বেশি পরেন কাবলি পায়জামা ও পাঞ্জাবি। মাঝেমধ্যে ঈদে পাঞ্জাবি পরেন। তবে এবার হয়তো কাবলিই পরবেন। রং আর নকশায় হয়তো একটু বৈচিত্র্য আনবেন। নাসির হোসেন বললেন, ‘পাঞ্জাবিতে খুব বেশি কারুকাজ না। বরং সাদামাটা নকশা বেশি ভালোবাসি। আর নানা ধরনের পাঞ্জাবি পরলেও সুতিতেই বেশি আরাম পাই। তাই ঘুরেফিরে সুতি পরি। যেহেতু গরমে ঈদ হচ্ছে তাই এমন পোশাকেই আরাম হবে। পাঞ্জাবিসহ যেকোনো পোশাকে সাদা, কালো আর নীল রংই বেশি পছন্দ।’ আরও জানালেন, ঈদের দিন সাধারণত জিনস প্যান্ট পরেন। তবে পাঞ্জাবি পরলে সঙ্গে থাকে পায়জামা।

এবার তরুণদের পাঞ্জাবিতে টিউন ফিটের চল দেখা যাবে। তবে বয়স্ক ব্যক্তিদের জন্য কিছুটা ঢিলেঢালাই থাকছে পাঞ্জাবির কাট। ফ্যাশন হাউস ওটুর স্বত্বাধিকারী জাফর ইকবাল বলেন, মাঝে কয়েক বছর খাটো পাঞ্জাবির চল ছিল। এবার সেটা থাকছে না। এবারের ট্রেন্ড লম্বা কাটের টিউন ফিট পাঞ্জাবি। কাপড়ের ধরন ভিন্ন হলেও যতটা সম্ভব পাতলা রাখা হয়েছে। যাতে বাতাস চলাচলে শরীর সুস্থ থাকে। বিকেল বা সন্ধ্যার দিকটাতে দাওয়াতে গেলে পাঞ্জাবির ওপর একটা প্রিন্স কোট জড়িয়ে নিতে পারবেন। এবারও নানা ধরনের প্রিন্স কোটের চল দেখা যাবে। প্রিন্স কোটে ছিমছাম পাঞ্জাবিও অভিজাত দেখায়।
পাঞ্জাবিতে এবার নীল রঙের খেলা জমবে। বাদলা দিনে ঈদ উৎসব বলে পোশাকেও সেটাকে তুলে এনেছেন ডিজাইনাররা। এ ছাড়া সাদা, অফ হোয়াইট, ছাই, লেবু, হলুদ, বেগুনি, লাল ইত্যাদি রং দেখা যাবে। আড়ংয়ের পাঞ্জাবি বিভাগের দায়িত্বে আছেন সজীব ভট্টাচার্য। তিনি জানান, নানা বয়সের ক্রেতার কথা মাথায় রেখে ঈদের সংগ্রহ সাজাতে হয়। তাই ঈদে ট্র্যাডিশনাল পাঞ্জাবির পাশাপাশি অল্পস্বল্প কারুকাজ করা পাঞ্জাবি থাকছে। বুকের সামনে, গলায় বা হাতা নিচের দিকে নানা নকশা করা হয়েছে অনেক পাঞ্জাবিতে।

তাসকিন আহমেদউজ্জ্বল রঙের পাঞ্জাবিই পরতে ভালো লাগে
—তাসকিন আহমেদ 
ক্রিকেটার তাসকিনের কাছে পাঞ্জাবি খুবই পছন্দের পোশাক। তাই যেকোনো বিশেষ দিন কাটে পাঞ্জাবিতে। আর ঈদের দিন! সেটা না হয় তাসকিনের মুখেই শুনুন, ‘ঈদের দিন সকালে গোসল করেই পাঞ্জাবি পরি। সকালে নামাজ পড়ার আগ থেকে পুরোটা সময় গায়ে থাকে পাঞ্জাবি। এবারের ঈদ নিয়ে এখনো ভাবার সময় পাই নাই। খেলাধুলা নিয়েই বেশি ব্যস্ত আছি। তবে ঈদের দিন যদি বেশি গরম পড়ে, তাহলে হয়তো দুইটা পাঞ্জাবি পরতে পারি। সকালে একটা পরে নামাজ ও আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করব, এরপর দুপুরের দিকে সেটা পাল্টে আরেকটা পরে নিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা। যেকোনো উজ্জ্বল রঙের পাঞ্জাবিই পরতে ভালো লাগে। তবে নিজেকে কালো রঙেই বেশি ভালো দেখায় বলে মনে হয়।’ পাঞ্জাবির সঙ্গে জিনস প্যান্ট পরেন বেশির ভাগ সময়ে। মাঝেমধ্যে পায়জামা পরেন। ক্যাজুয়াল লুক আনতে সঙ্গে পায়ে মোকাসিন বা চামড়ার ফ্ল্যাট স্যান্ডেল পরবেন। আর চুল সাজাবেন এখনকার মতো মোহাক স্টাইলেই। সকালের দিকটা পরিবারের সঙ্গে থাকলেও বিকেল বা সন্ধ্যার পরের সময়টা কাটবে বন্ধুদের সঙ্গেই।

বোতামের দুই ধারে ও হাতার নিচে অল্প সুতার এমব্রয়ডারি বা হাতের কাজ দেখা যাচ্ছে। নানা ধরনের প্রিন্টের নকশা করা হচ্ছে পাঞ্জাবিতে। আছে টাইডাই করা পাঞ্জাবিও। আর সবটাই ক্রেতাদের আরামের কথা মাথায় রেখে করেছে ফ্যাশন হাউসগুলো। সুতির পাশাপাশি যারা ভারী কাজের পাঞ্জাবি পরতে চান, তাঁদের জন্য আছে সিল্ক, ভয়েল, জামেবার, অ্যান্ডি ইত্যাদি কাপড়ে তৈরি পাঞ্জাবি। পাঞ্জাবির সঙ্গে তরুণেরা অনেকেই জিনস প্যান্ট পরেন। তবে সকালটা পায়জামা পরে থাকলে আরাম পাবেন। আলিগড়ি, চুড়িদার ও ট্রাউজার স্টাইলের পায়জামা থেকে বেছে নিতে পারেন পাঞ্জাবির সঙ্গে মানানসই পায়জামা। পায়জামা পরলে পায়ে দুই ফিতার স্যান্ডেল বা স্যান্ডেল শু পরতে পরামর্শ দিলেন ফ্যাশন বিশেষজ্ঞরা। অনেকে আজকাল মোকাসিন বা লোফার দিয়েও পাঞ্জাবি পরছেন। জিনস প্যান্টের সঙ্গে এমন লুক ভালো দেখাবে।

দরদাম
পাঞ্জাবির দাম ফ্যাশন হাউসে একধরনের, আবার বিভিন্ন শপিং মলে আরেক। বিভিন্ন শপিং মলে কিনতে চাইলে পেয়ে যাবেন ৫০০ থেকে ২৫০০ টাকায়। ফ্যাশন হাউসের পাঞ্জাবির দাম সাধারণত এক হাজার টাকা থেকে শুরু করে দশ হাজার টাকা পর্যন্ত আছে। প্রিন্স কোটের দাম পড়বে ৮০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা। আলাদা করে পায়জামা কিনতে চাইলে আপনাকে ২০০ টাকা থেকে দুই হাজার টাকা পর্যন্ত গুনতে হবে।

যেখানে পাবেন
ফ্যাশন হাউস লুবনান, ওটু, আর্টিস্টি, ইনফিনিটি, লা রিভ, আড়ং, যাত্রা, ইয়েলো, স্মার্টেক্স, মনসুন রেইন, ক্যাটস আই, একস্ট্যাসি, স্টুডিও এমদাদ, মায়াসীর, কুমুদিনী, কারুপল্লী, ব্যাং, অন্যমেলা, প্লাস পয়েন্ট, নগরদোলা, দেশি দশের সব দোকান, স্বদেশী, আজিজ সুপার মার্কেট, নিউমার্কেট, এলিফ্যান্ট রোড, পল্টন, গুলিস্তান, পিংক সিটি, রাপা প্লাজা, প্লাজা এ আর, মৌচাক মার্কেটসহ প্রায় সব মার্কেটেই মিলবে পাঞ্জাবি।

২৩/০৬/২০১৫ইং এ.জেড.আর. 

ব্রেকিং নিউজঃ
Widget by:Baiozid khan